Breaking

Saturday, October 20, 2018

October 20, 2018

how to get high cpc admob

how to get high cpc admob

how to get high cpc admob
how to get high cpc admob

तो नमश्कार दोस्तो आप सबका बोहुत बोहुत स्वागत हैं यह हमारे ओर आपके वेबसाइट के अन्दर । तो दोस्तो आज के यह पोस्ट के अंदर हैम जानने वाले हैं हमारे एडसेंस ओर अदमोब एकाउंट पर cpc कैसे बढ़ाएं ओर वो भी सही तरीका से । मैन बोहुत खुज किया इसके बारे में फिर मैंने इसके ऊपर 3 से 4 ट्रिक्स लेकर आज आप सबके सामने हाजिर हो । तो चलिए जानते हैं सब कोच एकदम शुरू से ।

Cpc किया हैं ? -


दोस्तो हमको cpc बढ़ाने से पहले हमको यह जानना जरूरी हैं के cpc किया हैं और इसके बारे में सारे कोच । दोस्तो cpc का पुरा नाम हैं click for cost इसका मतलब हैं के अगर आपके ad पर जबभी क्लिक पड़ता हैं तभी वो क्लिक के बदले में आपको कोच पैसा दिया जाता हैं । और आपको यह cpc पहले गूगल इससे रखेगा फिर उससे कट करके आपके एडसेंस पर शो करवा देता हैं । इसीलिए जो आपको इंडिया से cpc काम मिलती है  ।

Cpc बढ़ाने का पहला तरीका -


दोस्तो में आपको पहले जिसके बारे में बात करने वाला हु वो ट्रिक आप सभी जानते हैं लेकिन आपको इसके बारे में कोच ओर भी बात करने वाला हो । तो उसका नाम हैं mediation दोस्तो mediation हमारे cpc को बढ़ाने में बोहुत सहायता करता हैं ।

दोस्तो mediation असल में किया हैं के इसके जो ecpm हैं उसको हुम् बढ़ा सकते हैं और हम जो हैं हमारे app पर कोनसी देश का ad आना चाहिए उसको हैम लगा सकते हैं ।

अभी आपको youtube पर अगर आप mediation का वीडियो देखोगे तो उसमे जो हैं आपको बोला जाएगा के आप अपने ecpm को कमसे कम 2$ तक रखे । जी हां दोस्तो यह बात बिल्कुल सच हैं क्यों के अगर आप ज्यादा ecpm लगाएंगे तो हो सकता हैं के आपके app पर ज्यादा ad ना आये ।

अगर आप चाहते हो के आपके 1 या 2 क्लिक पर 10$ से ऊपर cpc मिले तो आप जो हैं 20$ तक ecpm रखिये । नही तो आपके app पर बिल्कुल ad आना बंद हो जाएगा ।

Ad काम क्यों आएगा मतलब आपने तो इतनी बड़ी ecpm लगा दिया अभी गूगल आपको तभी ad दिखायेगा जब उनके पास आपने जितने का ecpm लगाया था उतना हैं तो अभी जो advertiser हैं अगर वो इतनी ज्यादा रुपिया का bid नही लगाएगा तो गूगल आपको कहासे ad दिखायेगा । तो आप जो हैं ज्यादा से ज्यादा 3 या 4$ तक ecpm रखियेगा ।

Cpc बढ़ाने का दूसरा तरीका -


अभी cpc बढ़ाने का जो दूसरा तरीका हैं वी हैं high quality keyword search । अगर आप thunkable, appybuilder, या makeroid से app बनाते हो तो जब आप अपने app पर banner ad या interstitial ad लगाते हो तभी आपको एक ऑप्शन दिया जाएगा personalised

अगर आप यह personalised को ऑफ रखते हैं तो किया होगा में आपको बताता हूं अगर यह ऑफ रहेगा तो मतलब आपके App पर हर किसी का किसीभी प्रकार का ad आएगा ।

ओर आगर इसको ऑन रखते हो तो इससे किया होगा के जब भी आप अपने browser पर कोच भी सर्च करेंगे तो उसकी हिसाब से जो हैं आपको ad  दिखाया जाएगा ।

अब ऐसा क्यों होता हैं मानलो के आपने गूगल पर जा के insurance keyword को सर्च किया और फिर आपके सामने जितनी भी वेबसाइट दिखाया जाएगा insurance का तो आप वो सभी वेबसाइट को visit करिये बार बार रिफ्रेश करते रहिए गया । अब insurance जो keyword हैं इसमे जो हैं आपको cpc अच्छा मिलेगा । अब गूगल किया करेगा आपके app पर सभी insurance के ad दिखायेगा कियु के गूगल जो हैं वो समझेगा के यह बाँदा insurance keyword को लेकर सीरियस हैं और अगर हम इसको insurance का ad दिखाते हैं तो वो बाँदा जरूर ad पर क्लिक करेगा । तो ऐसा होता हैं ।

Keyword को find कैसे करोगे -


दोस्तो मैने आपको यह तो बता दिया के आपको keyword find करके उस keyword के ऊपर आपको रिसर्च करना होगा । आब बात रही के आप कैसे करोगे दोस्तो इसका भी हाल हमको गूगल है दे रखा हैं ।

आगर आप गूगल में जा के सर्च करते हो के keyword search planner तब आपके सामने गूगल adword का ऑप्शन आ जायेगा तभी आपको वह जा के पहले आपको sign in करना होगा फिर आप किसीभी keyword को सर्च कर सकते हो । जैसे के मानलो insurance, bitcoin, car deals ऐसे keyword को आपके रिसर्च करके देखना हैं किसमे कितना cpc हैं ।

Cpc बढ़ाने का तीसरा तरीका -


दोस्तो जो में आपको तीसरा तरीका बताने वाला हो वो एकदम सिंपल हैं तो वो हैं के आपको जो हैं एक अच्छा vpn डाउनलोड करना होगा । अगर आप vpn को बेभार करते हो तो ।

आपको cyber ghost vpn या turbo vpn को नही करना । क्यों के इसमे ट्रैफिक जायदा हैं । जिसके कारण वो लोग सबको अलग अलग ip नही होती हैं । आपको कमसे कम 9 से 10 vpn लेना होगा । और अच्छे जिसमे ट्रैफिक काम हो कोई सा भी हो । में आपको recomended करूँगा xvpn को यह एक बोहुत अच्छा vpn हैं । अलग अलग ip भी देते हैं ।

तो दोस्तो हमने आज आपको cpc बढ़ाने का 3 आसन,सही और रियल तरीका बताया हु ।

  • Mediatation
  • Keyword planner
  • Use multiple vpn or best vpn.


दोस्तो आजके लिए बस इतनी है । मिलते हैं हम किसी ओर एक नया पोस्ट के साथ । टैब तक के लिए जय हिंद ।

Thursday, October 11, 2018

October 11, 2018

How to earn money with facebook ?

How to earn money with facebook ?

How to earn money with facebook ?
How to earn money with facebook ?

হেয় বন্ধুরা ফেসবুক তো আমরা সবাই ব্যবহার করি থাকি কিন্তু আমরা সারাজীবন শুধু টাকা খরচ করেছি নেট ভরেছি আর নেট খরচ করেছি । কিন্তু এর থেকে আমরা এক পয়সা ও আয় করতে পারিনি । আপনারা কি জানেন ফেসবুক থেকে আয় করা যায় কিন্তু কতগুলো নিয়ম ও পদ্ধতি আছে যা আমরা আজকের এই পোস্ট এর মধ্যে জানতে চলেছি । তাহলে চলুন বেশি দেরি না করে জানাযাক কি সেই পদ্ধতি গুলো । তাহলে জুড়ে থাকুন আমাদের সাথে এই পোস্ট এর মধ্যে -

Facebook page -


আমরা সবার আগে জানব facebook page আপনি facebook page ফেসবুক থেকেই খুলতে পারেন । যদি আপনার page কোনো একটা বড়ো ধরণের কোম্পানি নিয়ে হয় মনে করেন আপনার page টা amazon মনে amazon এ কোনো offer আসলে বা কোনো নতুন কিছু হলে আপনি সবার আগে ওই pageupdate দিয়ে দেন তাহলে এমন হলে কোম্পানি আপনাকে টাকা দিয়ে কিনে নিবে বা আপনার page টা কে কিনে নিবে । এই রকম ভাবে অনেক টাকা ইনকাম করা যায় ।

Short links-


আমরা short links সম্মন্ধে আগে ও অনেক গুলো পোস্ট লিখেছি যে short link কি ? এই সব বিষয় নিয়ে তো আপনি short link কে কি ভাবে কাজে লাগাবেন আপনি কি করবেন কোনো একটা link কে ছোট করে আপনি সেই লিংক টা কে আপনার বন্ধুদের,timelime,গ্রুপ এই সব গুলোতে আপনি ওই লিংক টা কে শেয়ার করে দিন । যদি কেও এই লিঙ্ক এর ওপর ক্লিক করে তাহলে আপনাকে কিছু টাকা দিতে হবে ।

Creator for facebook-


বন্ধুরা আমরা সবাই জানি যে youtube এ ভিডিও আপলোড করে monitization করলে আমার youtube থেকে ইনকাম করতে পারি । কিন্তু আপনি কি জানেন যে ফেসবুক এ ভিডিও ছাড়লে ও যে ফেসবুক থেকে টাকা ইনকাম করা যায় । জানেন না তো তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ফেসবুক ও তাদের একটা নিজের ভিডিও শেয়ার এর প্লাটফরম তৈরি করেছে যেখানে আপনি ভিডিও আপলোড করতে পারবেন ও আর্নিং করতে পারবেন । আপনি এই বিষয় নিয়ে youtube এ দেখতে পারেন অনেক বড়ো বড়ো youtuber রা এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন ।

MLM planing-


MLM মানে Multi Level Marketing আমরা এই রকম অনেক দেখেছি যেমন মনে করুন champcash, social adworld, এই রকম আরো অনেক গুলো আছে যার থেকে আপনি রেফার এর মাধ্যমে লেভেল করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন । তো ফেসবুক এর জন্য খুবই একটা ভালো কারণ আপনি 2 থেকে 3 তা ফেসবুক এর id বানিয়ে নিন । তার পর আপনার একাউন্ট এ কিছু বন্ধু জমিয়ে তাদের কে রেফার করে জইন করান এবং তাদের কে এই বিষয় টা নিয়ে বোঝান এবং তাদের কে ও বলবেন সবার সাথে শেয়ার করার করার জন্য তার পর আপনি দেখবেন এর থেকে আপনি কত টাকা ইনকাম করতে পারছেন পরবর্তী সময়ে দেখবেন আপনাকে কিছু করতে লাগছে না । সব কাজ তারা নিজেরাই করছে ।

তো বন্ধুরা আমরা আজকের এই নতুন পোস্ট এর মধ্যে জানতে পেয়েছি যে কি ভাবে আপনি ফেসবুক কে ব্যবহার করে ফেসবুক এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করবেন ।
তো বন্ধুরা আপনাদের যদি এই পোস্ট টি ভালো লেগে থাকে বা আপনি যদি এর থেকে কিছু শিখতে পেয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই সবার সাথে শেয়ার করবেন ও কমেন্ট করে আমাদের কে সহযোগিতা করবেন ।
আপনাদের মহামূল্যবান সময় দিয়ে পোস্ট টি কে পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ ।

Saturday, October 6, 2018

October 06, 2018

অনলাইনে টাকা কামানোর সব থেকে ভালো 5 টি টপিক ।

অনলাইনে টাকা কামানোর সব থেকে ভালো 5 টি টপিক ।

অনলাইনে টাকা কামানোর সব থেকে ভালো 5 টি টপিক ।
অনলাইনে টাকা কামানোর সব থেকে ভালো 5 টি টপিক ।

নমস্কার বন্ধুরা আপনাদের সবাইকে স্বাগত জানাচ্ছি আমাদের এই ওয়েবসাইটে । আপনারা সবাই কেমন আছেন আশা করি আপনারা সবাই ভালো আছেন । তাহলে বন্ধুরা আমরা আজ আজকের এই নতুন পোস্ট এর মধ্যে জানতে চলেছি অনলাইনে টাকা কামানোর জন্য সেরা পাঁচটি প্লাটফরম ।তাহলে চলুন শুরু করা যাক -

Youtube -

বন্ধুরা আমরা সর্বপ্রথমে youtube এ রাখবো । কারণ আমরা জানি youtube থেকে অনেক টাকা কামানো যায় । আমরা জানি যে youtube এ সাকসেস হতে গেলে আপনাকে অনেক সময় দিতে হবে ।কারণ যদি আপনার youtube চ্যানেল monitization না ও হয় তাহলে আপনি এর থেকে বেশি income টাকা ইনকাম করবেন ।আর youtube এ সব থেকে বেশি লাভ হলো যে যদি আপনার চ্যানেল এ বেশি subscriberviewer থাকে তাহলে আপনি sponsorshipreview এই ধরণের জিনিষ গুলো উপভোগ করতে পারেন আরো অনেক কিছু । যার ফলে অনেক আয় হবে ।

Blogging-

বন্ধুরা 2nd হলো আমাদের blogging কারণ আমাদের অনেকেরই লেখার শখ থাকে । যেমন মনে করুন কবিতা লেখা,মোবাইল সম্মন্ধে ধারণা,সাস্থ বিষয়,এই সব কিছু বিষয় নিয়ে আপনি লিখতে পারেন আপনার যে বিষয় ভালো লাগে সেই বিষয় নিয়েই লিখতে পারেন।  তার পর যখন আপনার ব্লগার এ অনেক গুলো পোস্ট হয়েও যাবে এবং সব কিছু ভেরিফাই করার পর এডসেন্স এর জন্য পাঠিয়ে দিন । তার পর approval হয়ে যাওয়ার পর দেখবেন আপনি কত টাকা ইনকাম করছেন ।

Short links-

বন্ধুরা আমার এই short link কে 3নং রাখবো কারণ আজ কাল দেখা গেল যে এই short link টা বেশি rank করছে আর্নিং এর ক্ষেত্রে । আপনি যদি short link ওয়েবসাইট বানাতে চান তাহলে market এ অনেক ডেভেলপার আছে তাদের কিছু টাকা দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন । আমরা short link সম্মন্ধে প্রথমেই 2টা পোস্ট লিখে রেখেছি । আপনি চাইলে সেই পোস্ট গুলি পড়তে পারেন ও আরো বেশি জানতে পারেন ।

Photography-

বন্ধুরা ফটোগ্রাফি থেকে ও টাকা কামানো যায় । জানেন কি কি ভাবে যদি আপনার একটা দামি মোবাইল বা dslr থাকে এবং আপনার ফটোগ্রাফি করতে ভালো লাগে তাহলে পোস্ট টা কে ভালো ভাবে দেখেন  আপনি ফটোগ্রাফি করতে যদি ভালো লাগে তাহলো shutterstock, picstore এই রকম অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনি আপনার ক্লিক করা সুন্দর ফটো গুলো বিক্রি করতে পারেন এবং অনেকটা টাকা ইনকাম করতে পারেন ।

One ad-

বন্ধুরা আমাদের 5 নম্বর এ যেইটা সেটা হলো one ad আপনারা হয়তো ভাবছেন যে আমি one ad কেন লিখলাম বন্ধুরা আপনারা হয়তো জানেন না যে one ad নামে playstore একটা app আছে যার থেকে আপনি team বানিয়ে কাজ করে আর্নিং করতে পারেন । one ad অনেক পুরনো একটা app এবং অনেক বছর ধরে কাজ করছে । এখানে শুধু আপনকে রেফার করতে হবে আপনার ফ্রেন্ড দের ও সেইখানে থেকে আপনি লেভেল ইনকাম করতে পারবেন ।
বন্ধুরা আমরা আজকের এই পোস্ট এর মধ্যে যে 5 টি অনলাইনে টাকা কামানোর টপিক গুলি বললাম যদি এর মধ্যে থেকে আপনার কোনো একটা ভালো লেগে থাকে তাহলে সেটা আপনি ব্যবহার করতে পারেন ।

বন্ধুরা আপনাদের মহামূল্যবান সময় দিয়ে আমাদের পোস্ট টি কে পড়ার জন্য ধন্যবাদ ।

Friday, October 5, 2018

October 05, 2018

মোটা হওয়ার সহজ উপায় জানুন বাংলায় ।

মোটা হওয়ার সহজ উপায় জানুন বাংলায় ।

মোটা হওয়ার সহজ উপায় জানুন বাংলায় ।

হেয় বন্ধুরা স্বাগত জানাচ্ছি আমাদের life tips এর আরেকটা নতুন পোস্ট এর মধ্যে তো বন্ধুরা আমরা আজকে জানতে চলেছি কি ভাবে আপনি মোটা হবেন ? বন্ধুরা আপনি কি মোটা হতে চান ? সবাই কি আপনকে স্কুল ,কলেজ এ রোগা
,পাতলা বলে কি চেতিয়ে দেয় ? তো বন্ধুরা আপনারা আমাদের এই পোস্ট টা কে follow করেন মনোযোগ দিয়ে পড়বেন তাহলে ভালো করে বুঝবেন । তাহলে চলুন শুরু করা যাক স্টেপ , স্টেপ করে ।

নিয়মিত খাবার -

বন্ধুরা আপনাদের কে সবথেকে আগে যেইটা করতে হবে সেটা হলো আপনাদের নিয়মিত খাবার খেতে হবে । যেমন মনে করেন আমরা অনেকসময় কি করি আমরা যদি সকালে খাই তাহলে আবার দুপুরে খাইনা,কিন্তু এই রকম করলে হবে না । আপনাকে সকালে,দুপুরে,রাতে নিয়মিত খেতে  হবে । আর তা ছাড়া অনেক সময় লক্ষ করবেন যে আমরা সময় মত খাওয়ার পর ও আমাদের মাঝে মধ্যে ক্ষুদা লেগে যায় কিন্তু তখন আমরা কি করি আমরা ক্ষুদা টা কে চেপে রেখে খায় না । কিন্তু আপনাকে এই রকম করলে হবে না যখন ক্ষুদা লাগবে তখনই খেয়ে নিতে হবে ।

নিয়মিত ঘুমানো-

বন্ধুরা নিয়মিত ঘুম কিন্তু আমাদের শরীরের একটা সব থেকে বড় জিনিষ । কারণ ঘুম হলো এমন একটা জিনিষ যেইটা না হলে আমরা কোনো কাজ করতে পারিনা ।আমরা মাঝে মধ্যে লক্ষ করেছি যে আমরা অনেক রাত করে রাতের বেলায় ঘুমোতে যায় কিন্তু এটা করা ঠিক নয় । কারণ ঘুম যদি আমাদের সঠিক পরিমানে না হয় তাহলে আমাদের শরীর ভেঙে যায় । তাই আপনি কখনো বেশি রাত করে জেগে থাকবেন না । যত তাতারি পারেন ঘুমিয়ে পড়বেন । রাত 9 টা থেকে পরের দিন 5 টা বা 6 টার সময় আবার ওঠে যাবেন । তাহলেই দেখবেন আপনার শরীর ফিরে আসবে এবং সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে ।
কি খাবার খেতে হবে ?
বন্ধুরা আপনারা মোটা হতে গেলে আপনাদের সর্বপ্রথম প্রোটিন খাবার খেতো হবে । যেমন মনে করুন মাছ,মাংস,ডিম,ডাল, ও ভাত ও ফল খাবেন তাহলেই দেখবেন খুব শ্রীঘ্রই আপনি আপনার রোগা পাতলা জীবন ছেড়ে একটা জীবন পেতে পারেন । আপনাকে সব সময় ফ্যাট জাতীয় খাবার খেতে হবে । তাহলেই আপনি সাকসেস পেতে পারেন ।

শাকসবজি-

বন্ধুরা শাকসবজি আমাদের জন্য খুবই প্রয়োজন । কারণ আমরা আমাদের বেশির ভাগ শক্তি ,ভিটামিন,ও প্রোটিন পেয়ে থাকি শুধুমাত্র শাকসবজি থেকে । তাহলে আপনি যদি আপনার শরীর বাড়াতে চান তাহলে আপনার জন্য খুবই দরকার হবে শাকসবজি । তাহলে আপনি ভিটামিন ও পাবেন ও কিছু পরিমান ফ্যাট ও পেয়ে যাবেন ।

তৈলাক্ত খাবার-

বন্ধুরা তৈলাক্ত খাবার তো আমাদের নিয়মে খেতে নেই । কারণ অতিরিক্ত তৈলাক্তর ফলে আমাদের গ্যাস হয়ে যায় । আপনার পেট খারাব হতে পারে । আপনার মানসিক শক্তি ও খারাপ হয়ে যেতে পারে । কিন্তু তৈলাক্ত খাবার থেকে আপনি অনেক প্রচন্ড পরিমানে ফ্যাট পাবেন । কিন্তু আপনি যদি তৈলাক্ত জিনিষ খান তাহলে অবশ্যই গ্যাস এর বড়ি  খেয়ে নিবেন ।
তো বন্ধুর আশাকরি আপনাদের সবাই কে আমাদের এই পোস্ট টি ভাললেগেছি । যদি ভালো লাগে থেকে তাহলে অবশ্যই একটা । কমেন্ট কিরে জানাবেন ।
আপনার মোল্লায়বান সময় দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ ।

Wednesday, October 3, 2018

October 03, 2018

লিংক শেয়ারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করুন paytm cash প্রত্যেক দিন । বাংলায়

লিংক শেয়ারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করুন paytm cash প্রত্যেক দিন । বাংলায়

লিংক শেয়ারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করুন paytm cash প্রত্যেক দিন । বাংলায়
লিংক শেয়ারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করুন paytm cash প্রত্যেক দিন । বাংলায়

হেয় বন্ধুরা স্বাগত জানাচ্ছি আমাদের আজকের এই নতুন আরেকটা টিউটোরিয়াল এর মধ্যে যেখানে আমি আজ আপনাদের কে বলতে চলেছি যে কিভাবে লিংক শেয়ারে র মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ? জানতে চাইলে জুড়ে থাকুন আমাদের সাথে এই পোস্ট এর মধ্যে এবং মনোযোগ সহকারে পড়বেন তাহলে অবশ্যই বুঝবেন ।তো বন্ধুরা আমি যে আজ আপনাদের কে বলতে চলেছি যে লিংক শেয়ারের ফলে টাকা ইনকাম তাহলে চলুন জানা যাক স্টেপ স্টেপ করে ।

কোন ওয়েবসাইট এইটা ?

তো বন্ধুরা আমি আপনাদের কে যে ওয়েবসাইটটার কথা বলতে চলেছি সেই ওয়েবসাইট টার নাম হলো linksad.net আপনি এই ওয়েবসাইট টা থেকে যে কোনো লিংক কে ছোট করে শেয়ারের মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন । চলুন জানা যাক আরো বাকি স্টেপস গুলি ।

কি ভাবে join করবেন ?

আপনাকে এই ওয়েবসাইটে join করতে হলে সর্ব প্রথমে আপনাকে এই HERE লেখা টার ওপরে ক্লিক করতে হবে । তার পর আপনি এই ওয়েবসাইটের sign up page এ চলে যাবেন । তার পর সেইখানে থেকে আপনি sign up করে নিবেন । চলুন জেনে নেওয়া যাক কি ভাবে sign up করবেন আপনি সেই page এ যাওয়ার পর আপনার নাম,ইমেইল id, এই সব গুলো বসিয়ে রেজিস্টার করে নিবেন ।

লিংক কি ভাবে শেয়ার করবেন ?

আপনাকে লিংক শেয়ার করার জন্য প্রথমে কোনো একটা ওয়েবসাইটের লিংক কে copy করে নিতে হবে । আপনি একটা ভালো বিষয়ের  ওপর সার্চ করে সেই লিংক টা কে copy করে সেখানে গিয়ে লিংক টা কে paste করবেন তার পর shirnk বোতাম টি কে ক্লিক করবেন । তার পর আপনাকে একটা তারা ছোট করে লিংক দিবে আপনি সেই লিংক টা কে কপি করে আপনার সব বন্ধুদের পাঠিয়ে দিন ও তাদের বলে দিন ক্লিক করতে । facebook, youtube, twitter এই সব সোশ্যাল নেটওয়ার্ক গুলি তে একাউন্ট বানিয়ে ফ্রেন্ড বানিয়ে তাদের কে শেয়ার করুন তো তাদের বলুন যে ক্লিক করতে ।

কি ভাবে redeem করবেন ?

আপনি redeem করতে হলে প্রথমে আপনার একাউন্ট এর ড্যাশবোর্ড এ যেতে হবে তার পরে বা দিকে দেখবেন তিনটা লাইন দেখতে পাওয়া যাবে সেইখানে ক্লিক করবেন তার পর একটা লিস্ট এর মত বেরিয়ে আসবে তার পর সব থেকে নিচে চলে যাবেন ও setting অপশন এ ক্লিক করবেন । তার পর সেখানে গিয়ে আপনার নাম,address, zip code(পিন নম্বর),আপনার মোবাইলে নম্বর তার পর আপনি যেইখানে টাকা redeem করতে চান সেইখানে ক্লিক করে সিলেক্ট করে নিন ।
যদি আপনি paytm এ নিতে চান তাহলে নিচে একটা খালি বাক্স থাকবে সেইখানে ক্লিক করে আপনার paytm নম্বর বসিয়ে দিবেন ।আর যদি paypal এ নিতে চান তাহলে paypal এর email id দিবেন । আপনি ২৪ ঘন্টার মধ্যে পেমেন্ট পেয়ে যাবেন আপনার wallet এ ।
আপনি এই গুলো থেকে redeem নিতে পারবেন -

  • Paypal
  • PayTm
  • Bank
  • Upi
  • Bitcoin(cooming soon)

তো আপনি এই গুলো থেকে নিতে পারবেন ।

কত টাকা হলে redeem করতে পারবো ?

আপনি আপনার একাউন্ট এ ১$ হলে redeem করতে পারবেন । এখন বর্তমানে ১$=৭৫ টাকা । এবং এই ওয়েবসাইটের ecpm বেশি আছে । আপনি ১০০০ view তে ৩০০$ পেতে পারেন এইটা কোম্পানি বলেছেন । এবং এর সব থেকে খুশির খবর হলো আপনি এর থেকে ডলার এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করতে পারবেন ।

তো বন্ধুরা আশা করি আপনাদের এই পোস্ট টা ভালো লেগেছে । তো বন্ধুরা আপনারা একবার অবশ্যই join করে দেখতে পারেন । ভালো লাগলে কমেন্ট করুন শেয়ার করুন । ও আপনার বহুমূল্য সময় দিয়ে পড়ার জন্য ধন্যবাদ ।

Tuesday, October 2, 2018

October 02, 2018

What is admob ? সম্পূর্ণ বাংলায় ।

What is admob ? সম্পূর্ণ বাংলায় ।

What is admob ? সম্পূর্ণ বাংলায় ।
What is admob ? সম্পূর্ণ বাংলায় ।

হেয় বন্ধুরা স্বাগত জানাচ্ছি আমাদের আজকের আরেকটা এই নতুন একটা সুন্দর পর্বের মধ্যে যেখানে আজ আমরা জানবো যে admob কি ? তো বন্ধুরা জানতে চাইলে জুড়ে থাকুন আমাদের সাথে আমি দ্বীপময় আর আপনারা এখন আছেন আপনাদের ওয়েবসাইট বাংলায় সাহায্য তে । তাহলে চলুন শুরু করা যাক । এবং বন্ধুরা আমরা প্রথমেই বলে দিচ্ছি এই পোস্ট টা শুধু মাত্র আপনাদের একটু basic idea দেওয়ার জন্য ।

Admob কি ?

Admob হলো একটা ফ্লাটফরম যেইখানে থেকে আপনি আপনার app এর মধ্যে admob এর ad বসিয়ে play store এ আপলোড করে যদি আপনার কয়েকজন visitor থাকে তাহলে আপনার প্রচুর পরিমাানা আর্নিং হবে । শুরু তে একটু কম হবে কিন্তু পরে গিয়ে এইটা একটিা বড়ো টাকায় পরিণত হবে । এইটা মনে রাখবেন সাফল্য একদিনে নয় কিন্তু একদিন অবশ্যই পাওয়া যাবে । তাই একটু ইনভেস্ট করুন আর আপনার app টি কে viral করুন ।

Admob কোন কোম্পানির ?

সব থেকে খুশির খবর হলো এটাই যে admob গুগল এর নিজর্ষ প্রোডাক্ট । কারণ আমাদের সবার গুগল এর ওপর ভরসা আছে । আমরা জানি যে গুগল আমাদের কে টাকা দেয় ও গুগল কখনো ধোঁকা দেয় না ও গুগল কে ও কখনো ধোঁকা দাওয়া যায় না । তাই আপনি admob এ বিশ্বাস করে কাজ করতে পারেন।  আপনি গুগল এ দিয়ে admob লিখে সার্চ করে সেখানে থেকে আপনার id বানিয়ে নিতে পারেন । ও id বানানোর সময় আপনার এডসেন্স একোউন্ট ও একেবারে তৈরি হয়ে যাবে যার জন্য আপনাকে বার বার পরিশ্রম করতে হবে না ।

App কি ভাবে বানাবো ?

বন্ধুরা আপনারা admob একাউন্ট তো বানিয়ে নিলেন এখন সব থেকে বড়ো জিনিষ হলো appapp কি ভাবে বানাবেন যদি আপনি app বানাতে পারেন তো ভালো কথা আর যদি আপনি না পারেন তাহলে যদি আপনার কোনো বন্ধু পারে তাদের দিয়ে বানিয়ে নিন আর তা না হলে অনেক app developer আছে তাদের দিয়ে ও কিছু টাকা দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন অথবা যদি আপনারা আমার থেকে app বানাতে চান ৫০০₹ টাকা দিয়ে তাহলে বানাতে পারেন আমি বানিয়ে দেবো । যদি বানাতে চান তাহলে নীচে কমেন্ট করুন ।

App কি ভাবে viral করবেন ?

বন্ধুরা আমাদের admob হয়ে গেল app ও হয়ে গেল এখন app viral করবেন কি ভাবে কারণ app যদি viral না করেন তাহলে users আসবে না আর যদি users না আসে তাহলে টাকা ও আসবে না । তো app viral করতে গেলে সব থেকে ভালো হবে youtube আপনি যদি বড়ো youtuber দের দিয়ে app প্রমোট করাতে চান তাহলে তারা একটু budjed বেশি লাগবে আর ছোট youtuber দিয়ে করালে একটু কম লাগবে । আমার ও youtube আছে যদি আপনারা চান আমি আপনার app প্রমোট করে দেয় তাহলে ৫০০₹ টাকার মধ্যে করে দেবো ।

Playstore app কি ভাবে পাবলিশ করবেন ?

প্লেস্টোরে আপনাকে app পাবলিশ করতে গেলে আপনাকে একটা প্রথমে googl console account কিনতে হবে টাকা দিয়ে 25$ দিয়ে । এইটা আপনাকে শুধু একবার প্রথমবার দিতে হবে । তার পর আপনি যত খুশি app পাবলিশ করতে পারেন । আর যদি আপনার কোনো বন্ধুর console account থাকে তাহলে তাকে কিছু টাকা দিয়ে app পাবলিশ করিয়ে নিন ।

তো বন্ধুরা আশা করি আপনারা সবাই বুঝতে পেরেছেন admob কি ও এর থেকে কি ভাবে টাকা কামানো যায় । যদি ভালো লাগে তাহলে একটা কমেন্ট করে জানাবেন । ও শেয়ার করে দিবেন । ধন্যবাদ ।

Sunday, September 30, 2018

September 30, 2018

Adsense Approval tric new 2018 - বাংলায় সাহায্য

Adsense Approval tric new 2018 - বাংলায় সাহায্য

Adsense Approval tric new 2018 - বাংলায় সাহায্য
Adsense Approval tric new 2018 - বাংলায় সাহায্য

হেয় বন্ধুরা স্বাগত জানাচ্ছি আমাদের আজকের আরেকটা সুন্দর এই নতুন পোস্ট এর মধ্যে । তো বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন আশা করি সবাই ভালো আছেন বন্ধুরা আমাদের আজকের পোস্ট টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ আমরা আজকের এই পোস্ট এর মধ্যে জানতে চলেছি কি ভাবে ২৪ ঘন্টা বা ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আমাদের এডসেন্স একাউন্ট approval করিয়ে নেবো । বন্ধুরা ব্লগগিং জীবনে অনেকবার ওই আমরা যখন এডসেন্স এর জন্য apply করতাম তখন গুগল কোনো না কোনো বাহানা ধরে আমাদের রিজেক্ট করিয়ে ওই দেয় । তো আমি আজকে আপনাদের যে টিপস গুলো বলবো আপনি যদি সেই গুলো follow করেন তাহলে আপনাকে আর রিজেক্ট ও করবেনা ও ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আপনাকে approval দিয়ে দিবে তাহলে চলুন জানা যাক ।

Unique post -

বন্ধুরা গুগল এডসেন্স এর জন্য আমাদের সব থেকে বড়ো যেইটা দরকারি সেইটা হলো আমাদের ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মধ্যে unique পোস্ট হওয়া । unique পোস্ট মানে আপনার নিজের পোস্ট হতে হবে আপনার নিজের লেখা নিজের তৈরি করা ফটো হতে হবে । তাহলেই আপনি খুব তাড়াতাড়ি approval পেয়ে যাবে । কারণ unique পোস্ট না হলে গুগল আপনাকে জীবনে ও approval দিবে না ।

Pages -

বন্ধুরা pages আমাদের ব্লগ বা ওয়েবসাইট এর জন্য খুব খুব খুবই একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় কারণ আপনি যদি আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইট এর মধ্যে pages না লাগান তাহলে আপনাকে approval দিবে না । কারণ গুগল এর policy তে লেখা আছে যে আপনি যে ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করছেন তার জন্য আপনি কি users এর data কি করবেন ad কি লাগাবেন ও অন্যান্য বিষয় গুলি আপনকে সেই pages এর মধ্যে লিখতে হবে । যদি আপনি মনে করেন যে pages গুলি নিজে লিখবেন না তাহলে এই রকম অনেক গুলো ওয়েবসাইট আছে যা আপনাকে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য pages বানিয়ে দিবে । যেমন মনে করুন privacypolicygenerator.info , disclaimergenerator.net , emailmeform.com এই তিনটা ওয়েবসাইট থেকে আপনি ফ্রী তে privacy policy,disclaimer ও contact us ফ্রী তে বানিয়ে নিতে পারবেন । কিন্তু আপনাকে about us page আপনাকে নিজে লিখতে হবে । এইখানে আপনাকে নিজের সম্মন্ধে লিখতে হবে । আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে এই pages গুলি থাকতে হবে - privacy policy, disclaimer, about us, contact us

Responsive user friendly theme-

বন্ধুরা theme ও আপনাদের ওয়েবসাইটের approval এর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারণ গুগল এর নিয়ম অনুযায়ী আপনার theme তাড়াতাড়ি লোড নিতে হবে । আপনার theme টা responsive হতে হবে ও mobile friendly হতে হবে । theme এর মধ্যে কোনো রকম scam যাতে না থাকে । ও আপনার theme এর মধ্যে বেশি পরিমাণ gadgets বব্যবহার করবেন না ।

Social links-

আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট এর মধ্যে social links এর অপশন থাকতে হবে যেমন মনে করুন facebook, whatsapp, twitter, instagram, এই রকমের social links আপনার ওয়েবসাইটের ওপরে বা নিচের দিকে থাকতে হবে যাতে গুগল মনে করে যে এই ওয়েবসাইট টা একটা activereal user এবং আপনার ওয়েবসাইটের নামে একটা facebook page বানিয়ে নিবেন ও সেই page টা কে আপনার ওয়েবসাইটে অবশ্যই লাগাবেন তাহলে আপনার approval নিতে সোজা হবে ।

Menu,submenu, dropdown menu-

আপনার ওয়েবসাইট কে approval নিতে গেলে আপনার ওয়েবসাইটে menu,submenu, dropdown menu থাকতে হবে । এবং কম পক্ষে ৪ থেকে ৫ টা menu create করবেন এবং সব গুলো মেনু তে ২ থেকে ৩ টা করে পোস্ট লিখবেন । এবং মেনু গুলো কে সুন্দর ভাবে সাজাবেন যেমন মনে করুন আপনি ব্লগগিং সিম্পর্খে একটা মেনু বানিয়েছেন তাহলে তাহলে আপনি ব্লগগিং সম্বন্ধীয় যত গুলো পোস্ট লিখবেন সব গুলো ব্লগগিং মেনু টা তে add করবেন । যাতে আপনার user দের কোনো একটা পোস্ট খুঁজে নিতে সুবিধা হয় ।

Insufficient content-

বন্ধুরা আপনারা যারা যখন এডসেন্স এর জন্য apply করেন এবং যদি এডসেন্স এর replyinsufficient content reply আসে তাহলে মনে করবেন যে আপনার পোস্ট গুলি তে heading, subheading, minor heading, এই গুলো আপনি সঠিক ভাবে ব্যবহার করেন নি । আপনি পোস্ট গুলো কে এডিট করে heading,subheading গুলো ঠিক করে আবার apply করুন আপনার approval এসে যাবে ।


Minimum post on your blog/website -

বন্ধুরা অনেকে কি করে তাদের ব্লগ বা ওয়েবসাইটে ১ থেকে ২ টা পোস্ট করেই তারা এডসেন্স এর approval এর জন্য পাঠিয়ে দেয় । কিন্তু আপনি যদি এই রকম করেন তাহলে আপনাকে approval দেওয়া হবে না । আপনার domain name যদি high quality হয় মানে .com, .in , .org , .net যদি আপনি রি রকম top level domain ব্যবহার করেন তাহলে আপনার ব্লগ , ওয়েবসাইটের জন্য কম পক্ষে ১০ টা পোস্ট হতে হবে । আর যদি আপনার অন্য domain হয় তাহলে আপনার ১৫ থেকে ২০ টা পোস্ট লিখতে হবে ।

Top level domin-

আপনার ওয়েবসাইট যদি তাতারি approval নিতে চান তাহলে আপনাকে একটা top level domain ব্যবহার করতে হবে । top level domain কোন গুলি আপনার এখনই ওপরে লিখেছি । আপনি সেইটা দেখতে পারেন । আপনি যদি একটা top level domain ব্যবহার করেন তাহলে আপনার তাতারি approval ও reply এসে যাবে ।

Do not use copyright content or images-

আমরা সবাই এই ভুল টা করে থাকি আমরা কি করি অন্যের ব্লগ , ওয়েবসাইট থেকে তাদের সম্পূর্ণ পোস্ট ও ফটো copy করে আমাদের website এ পোস্ট করে দেয় । যদি আপনি ও এই রকম করেন তাহলে এই গুলি করবেন না ও আপনার যে copy content গুলি আছে সেই গুলি delet বা ঠিক করে নিজের করে লিখে নিন । ও ফটো গুলো ও বদলে দিবেন । নিজের ফটো তৈরি করবেন । play store এ অনেক ভালো ভালো apps আছে যার সাহায্যে আপনি photo edit করে নিতে পারবেন । আমরা গুগল থেকে যে ফটো গুলো ডাউনলোড করি সেই গুলো copyright তাই আপনি সেই গুলো ব্যবহার করবেন না ।

তো বন্ধুরা আমরা আজকের এই পোস্ট এর মধ্যে জেনেছি যে তাড়াতাড়ি approval নিতে গেলে আমাদের কোন কোন steps গুলো follow করতে হবে । যদি আপনার পোস্ট টি ভালো লেগে থাকে তাহলে একটা কমেন্ট করে জানান । ও শেয়ার করে দিবেন সবার সাথে ধন্যবাদ ।